টিক টক ভিডিওর শুটিংয়ের সময় যুবকের মৃত্যু

টিক টক ভিডিওর শুটিংয়ের সময় যুবকের মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা,পুরুলিয়া,১৯শে আগস্ট: টিক টক ভিডিওর শ্যুটিংয়ের সময় এক যুবক মারা গিয়েছিলেন এবং অপর এক যুবক গুরুতর আহত হন পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে ভর্তি আছেন। ঘটনার বিষয়ে প্রাপ্ত তথ্য মতে, রবিবার সন্ধ্যা নাগাদ পুরুলিয়া নগরীর ১০ নম্বর ওয়ার্ডের চুনাভাট্টি এলাকার মোহাম্মদ নূর আনসারী ও তার বন্ধু সাদা আলামকে আদ্রা চান্দিল রেলপথের কাটিং রেল গেট থেকে কিছুটা দূরে নিয়ে যায়। শুটিং ভিডিও ছিল।এসময় নূর আনসারী ও হোয়াইট আলম গুরুতর আহত হয়ে ট্রেনের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন, দুজনকে পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোহাম্মদ নূর আনসারিকে মৃত ঘোষণা করেন। হোয়াইট আলম এই ঘটনার কথা জানিয়েছিলেন।রোববার সন্ধ্যায় নূর আনসারী তাকে কাটা রেল গেটের সামনে রেল লাইনে নিয়ে যায় যেখানে তাকে টিক টক ভিডিও শুরু করতে বলে। দীর্ঘ স্যুট পরে একটি যাত্রী ট্রেন আসছিল, নূর তার সামনে এসে আমাকে টিক টক ভিডিও শ্যুট করতে বলেছিল। ট্রেনটি কাছাকাছি এলে আমি স্যুট করছিলাম, নূরকে চলতে বললাম।নূর ট্রেন আসছে বুঝতে পারার আগে। নূর সরাসরি আমার সামনে পড়ে গেল।নূর সরাসরি আমার সামনে পড়ে গেল।আমরা দুজনেই ট্রেনের ট্র্যাকের সামনে ড্রেনে পড়ে গেলাম। এর পরে, অন্য দুই যুবক নূরকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যান, এই ঘটনা সম্পর্কে নূর আনসারির বাবা রফিক আনসারী ছেলের মৃত্যুর বিষয়টি তদন্তের জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেছেন। পুরুলিয়া সদর থানার পুলিশ এ ঘটনায় মৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে। জেলা পুলিশ সুপার আকাশ মেঘরিয়া বলেছিলেন যে এটি একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনা, জেলা পুলিশ এই বিষয়টি সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার চালাবে। বর্তমানে, এই ঘটনার পরে, চুন ভাট্টি এলাকায় আগাছা রয়েছে। রেলওয়ে প্রশাসন বা নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে জিআরপি বা আরপিএফকে এ বিষয়ে কোনও লিখিত তথ্য দেওয়া হয়নি। জিআরপি সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য মতে, নিহত পরিবারের লোকেরা যদি এই ঘটনার তদন্তের দাবি করে তবে জিআরপি বিষয়টি তদন্ত করতে প্রস্তুত।

বাংলাদেশে ডেঙ্গিতে আক্রান্ত প্রায়  ৫১ হাজার ৪৭৬ জন, মৃত অন্তত ৪০

বাংলাদেশে ডেঙ্গিতে আক্রান্ত প্রায় ৫১ হাজার ৪৭৬ জন, মৃত অন্তত ৪০

বাংলাদেশ : বাংলাদেশে ডেঙ্গি পরিস্থিতি কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না। বেড়েই চলেছে ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা, বাড়ছে মৃত্যুর ঘটনাও। ১৭ অগস্ট পর্যন্ত বাংলাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গি নিয়ে ভর্তি হয়েছেন ৫১ হাজার ৪৭৬ জন। ডেঙ্গিতে এখনও পর্যন্ত সরকারি ভাবে ৪০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। যদিও বেসরকারি হিসাবে এই সংখ্যাটা প্রায় ১৩৫।

কেমন কাটবে সপ্তাহের প্রথম দিন? পড়ুন রাশিফল

কেমন কাটবে সপ্তাহের প্রথম দিন? পড়ুন রাশিফল

মেষ,

আইন সংক্রান্ত কাজে সাফল্য পেতে পারেন। দুপুরের পরে ব্যবসায় সমস্যা বাড়তে পারে।নতুন কোনও ব্যবসার ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা। আজ কাজের জায়গায় খুব সতর্ক থাকুন, বুদ্ধি ভ্রম ঘটতে পারে।

বৃষ

আগুন থেকে সাবধান থকুন।খেলাধূলায় সাফল্য আসতে পারে। বিবাহের ব্যাপারে আনন্দ আসতে পারে। ব্যবসায় আয়ের পরিমাণ বাড়বে। বাড়তি কোনও খরচের জন্য চিন্তা বাড়তে পারে। শেয়ারে অতিরিক্ত খরচ থেকে সাবধান থাকুন।

মিথুন

শরীর সঙ্গ না দেওয়ার জন্য কাজের ক্ষেত্রে চাপ বাড়তে পারে। আজ কোনও প্রকার আশা ভঙ্গ হতে পারে। দূরে কোনও বেড়াতে যাওয়া নিয়ে আলোচনা। সামাজিক কোনও কাজের জন্য নাম–যশ বাড়তে পারে।

কর্কট

বিলাসিতার জন্য খরচ বৃদ্ধি। বাড়তি কোনও ব্যবসা থেকে অর্থ আসতে পারে। স্ত্রীর ব্যাপারে চাপ আসার আশঙ্কা। বাবার সঙ্গে তর্ক হতে পারে।পড়াশোনায় সাফল্য আসতে পারে। অসৎ লোক থেকে সাবধান থাকুন। অর্থের ব্যাপারে চাপ বৃদ্ধি।

 

কন্যা,

মহিলাদের নিয়ে বিবাদ। বাজে খরচ হতে পারে। সংসারে কোনও অতিথি আসতে পারে। নতুন কোনও প্রস্তাব আসার সম্ভাবনা। প্রেমের ব্যাপারে ভাল সুযোগ পাবেন। চোখের কোনও সমস্যা বাড়তে পারে।

সিংহ,

বন্ধুর সঙ্গে আজ কোনও কারণে মতান্তর ঘটতে পারে।মধুর কথাবার্তা বলবার জন্য বিপদ থেকে উদ্ধার পাবেন। শত্রুর ব্যাপারে চাপ থাকবে। পড়াশোনার জন্য ভাল সুযোগ আসবে। কর্মক্ষেত্রে উন্নতির চেষ্টা করুন। ভাইয়ের সঙ্গে বিবাদ বাড়তে পারে।

তুলা,

সংসারে কোনও বিবাদ কাজের প্রতি অনীহা আসতে পারে। বাবার সঙ্গে কোনও বিশেষ আলোচনা। শত্রুর ব্যাপারে সাবধানে থাকুন। প্রেমের জন্য বড়দের সঙ্গে বিবাদ বাধতে পারে।

বৃশ্চিক,

গান বাজনা নিয়ে যাঁরা কাজ করেন, তাঁদের জন্য কোনও সুযোগ আসতে পারে। নতুন কোনও বন্ধুর জন্য আনন্দে থাকবেন। স্ত্রীর কোনও কাজের জন্য শান্তি মিলতে পারে।সংসারে ব্যয় সঙ্কোচন করবার আলোচনা।

ধনু,

কোনও আত্মীয়ের খারাপখবর আসতে পারে। কর্মস্থানে অশান্তি বৃদ্ধি। আজ সকাল থেকেই দিনটি ভাল যাবে না। আজ সম্মান নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা প্রবল। সারা দিন কোনও কাজ নিয়ে চিন্তা থাকবে। চাকরির ক্ষেত্রে শুভ যোগাযোগ আসতে পারে।

মকর,

আজ সারা দিন কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হবে। অযথা কোনও অশান্তি হতে পারে। প্রিয় জনের জন্য মানসিক কষ্ট বাড়তে পারে। বাড়তি খরচের ব্যাপারে চিন্তা বাড়তে পারে। অতিরিক্ত কথা বলবার জন্য কর্মস্থানে বিবাদ।

কুম্ভ,

অতিরিক্ত পরিশ্রম হওয়ায় শরীর অসুস্থ হতে পারে। সন্তানদের চাকরির খবর পেতে পারেন। উকিলদের জন্য সামনে শুভ সময়। আজ খুব কাছের কোনও মানুষের জন্য আপনার ছোটখাটো ক্ষতি হতে পারে। স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্যের অবসান হতে পারে।

মীন

শারীরিক উন্নতির জন্য দূরে কোথাও ভ্রমন হতে পারে। কিছু কেনাবেচা করার জন্য দিনটি শুভ। কমবয়সীদের কথা শুনলে বিপদে পড়তে পারেন। পেটের সমস্যা বৃদ্ধি।সৎ গুরু দেবের সাহায্য পেতে পারেন। আজ ব্যবসায় ফল ভাল খারাপ মিশিয়ে থাকবে।

 

শচীন-ধোনিকে টপকে নয়া রেকর্ড কোহলির

শচীন-ধোনিকে টপকে নয়া রেকর্ড কোহলির

বিরাট কোহলি এবং রেকর্ড একপ্রকার সমর্থক হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটেই সাফল্য পেয়েছেন ভারত অধিনায়ক। এই দশকে বিশ্বের একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে ২০ হাজার আন্তর্জাতিক রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন তিনি। তবে শুধু মাঠেই নয়, মাঠের বাইরেও বাকি তারকাদের পিছনে ফেলে দিয়েছেন কোহলি। জনপ্রিয়তার নিরিখে শচীন তেণ্ডুলকর থেকে মহেন্দ্র সিং ধোনি, সকলকে টপকে গিয়েছেন তিনি।

নদী গর্ভ থেকে অবৈধভাবে বালি তোলার ফলে ময়ূরাক্ষী নদীর গর্তে তলিয়ে গেল এক ব্যক্তি

নদী গর্ভ থেকে অবৈধভাবে বালি তোলার ফলে ময়ূরাক্ষী নদীর গর্তে তলিয়ে গেল এক ব্যক্তি

নিজস্ব সংবাদদাতা,বীরভূম ,১৯ই আগস্ট :নদী গর্ভ থেকে অবৈধভাবে বালি তোলার ফলে ময়ূরাক্ষী নদীর গর্তে তলিয়ে গেল এক ব্যক্তি।কাজ করে বাড়ি ফেরার পথে ময়ূরাক্ষী নদীতে তলিয়ে গেলেন এক ব্যক্তি। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে মহঃবাজার থানা এলাকায়। ঘটনার পর এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। এদিক ওদিক খোঁজাখুঁজির পর ওই ব্যক্তির কোন রকম খোঁজ না পাওয়ায় অবশেষে প্রশাসনের তরফ থেকে নামানো হয়েছে বোট।

 

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল বৈকাল ৪টা থেকে ৪:৩০টার সময় কাজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে কোনো কারণবশত নিতাই আচার্য নামে বছর ৬৭র ওই ব্যক্তি বড়াম ঘাটের কাছে নদীতে নামেন। তারপর তিনি ময়ূরাক্ষী নদীর জলের তোড়ে তলিয়ে যান। ঘটনার খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন এসে খোঁজাখুঁজি শুরু করলে কোন রকম খোঁজ পাওয়া যায়নি। অবশেষে উদ্ধার কার্যে প্রশাসনিকভাবে নামানো হয়েছে বোট। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া অব্দি এখনো পর্যন্ত ওই ব্যক্তির কোন রকম খোঁজ পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ ব্যক্তির আত্মীয় জয়ন্ত বিশ্বাস জানান, “কাজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে। আমরা পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি করা সত্বেও যখন খুঁজে পাইনি তখন প্রশাসনিক তরফ থেকে নামানো হয়েছে বোট।”

 

কিন্তু স্থানীয়দের মধ্যে প্রশ্ন, দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে যে ব্যক্তি এই ময়ূরাক্ষী নদীর উপর দিয়েই পারাপার করছেন তিনি হঠাৎ করে কিভাবে তলিয়ে গেলেন জলে! স্থানীয় একাংশ মানুষের মতে বর্ষার আগে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ময়ুরাক্ষী নদী থেকে কখনো পাইপলাইন, কখনো বা জেসিবি মেশিন দিয়ে তোলা হচ্ছিল বালি। এর ফলে নদী গর্ভে তৈরি হয়েছে বড় বড় গর্ত, বর্ষার সময় জল থাকায় সেই গর্ত বুঝতে পারেনি নিতাই আচার্য। সে কারণেই নদীগর্ভে তলিয়ে গেছে সে।

স্থানীয়দের আরো এক ব্যক্তি ও ঠিক একই অভিযোগ করেন তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে নদী থেকে বালি তুলে নেওয়ার কারণেই আজ একজন ব্যক্তিকে নদীর বুকে তলিয়ে যেতে হলো। তাঁকে জলে তলিয়ে গিয়ে প্রাণ বিসর্জন দিয়ে প্রমাণ করতে হলো আমরা কি অবস্থায় রয়েছি!

স্থানীয়দের আরো অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে নদী পারাপারের জন্য সেতু নির্মাণের দাবি তোলা হলেও কোনো কাজ হয়নি। তারা ওই ব্যক্তির নদীতে তলিয়ে যাওয়ার পিছনে মূলত বালিঘাট এবং সেতুর অভাবকেই দায়ী করেছেন।