জেনে নিন ডিমের খোসার আশ্চর্য ব্যবহার!

জেনে নিন ডিমের খোসার আশ্চর্য ব্যবহার!

১) কফির তেতো স্বাদ কমাতে কফির সঙ্গে ডিমের খোসার গুঁড়ো এক চিমটে মিশিয়ে দিন। কফি গুলিয়ে নেওয়ার পর একটু সময় দিন যাতে ডিমের খোসার গুঁড়ো থিতিয়ে নিচে পড়ে যায়। এ বার খেয়ে দেখুন কফির তিক্ত স্বাদও অনেকটাই কমে যাবে।

২) বাগানে বার বার পোকার উপদ্রবে গাছ নষ্ট হচ্ছে? বাগানের চারপাশে, গাছের গোড়ায় গোড়ায় ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। পোকা-মাকড় গাছের ধারে কাছেও ঘেঁষবে না।

৩) ডিমের খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম আর মিনারেল যা বাগানের মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। ডিমের খোসা গুঁড়ো করে বাগানের মাটির সঙ্গে মিশিয়ে নিন। ফল পাবেন হাতেনাতে।

৪) ১টা ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে একটা বা দু’টো ডিমের খোসা ভাল করে গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। এ বার ওই প্যাক মুখে ১৫ মিনিট মতো লাগিয়ে রেখে উষ্ণ জল দিয়ে আলতো ঘষে ধুয়ে ফেলুন! এই প্যাক ব্যবহারের ফলে ত্বকের কালচে ভাব কেটে যাবে। ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল, প্রাণবন্ত! এই প্যাক নিয়মিত ব্যবহার করতে পারলে (সপ্তাহে ২ বারের বেশি নয়), ব্রণর সমস্যা থেকেও মুক্তি পাওয়া সম্ভব!

৫) বাসন পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করুন ডিমের খোসা। বাসনের পোড়া, চটচটে দাগ খুব সহজেই উঠে যাবে।

৬) অনেক সময় রান্নাঘরের সিঙ্কে বা বেসিনের পাইপে ময়লা জমে জল যাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে যায়। এ ক্ষেত্রে ডিমের খোসা খুব মিহি করে গুঁড়ো করে সিঙ্কে বা বেসিনের ছাঁকনির মধ্যে দিয়ে দিন। তারপর বেশি করে জল ঢেলে দিন। দেখবেন পাইপের ময়লা অনেকটাই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে।

৭) গাঁটের ব্যথা বা জয়েন্ট পেইন কমাতে ডিমের খোসা অব্যর্থ! একটি পাত্রে অ্যাপল সিডার ভিনিগারের সঙ্গে একটা গোটা ডিমের খোসা ভাল করে গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ অন্তত ২-৩ দিন রেখে দিলে দেখবেন, ডিমের খোসাগুলি ভিনিগারের সঙ্গে একেবারে মিশে গিয়েছে। এই মিশ্রণ দিয়ে ব্যথার জায়গায় আলতো করে মালিশ করুন। ডিমের খোসায় থাকে কোলাজেন, গ্লুকোসামিন, হায়ালুরোনিক অ্যাসিড যা ভিনিগারের সঙ্গে মিশে ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

প্রেমে ধারাবাহিক ব্যর্থতার পর পোষা কুকুরকেই বিয়ে করলেন প্রাক্তন মডেল

প্রেমে ধারাবাহিক ব্যর্থতার পর পোষা কুকুরকেই বিয়ে করলেন প্রাক্তন মডেল

বিয়ে ভেঙেছে ৪ বার, ডেটিং ব্যর্থ হয়েছে ২২১ বার! মানুষের প্রতি আস্থা হারিয়ে শেষমেশ তাই নিজের পোষ্য কুকুরকেই বিয়ে করে বসলেন প্রাক্তন এক ব্রিটিশ মডেল! লাইভ টিভি শো-এ এসে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন প্রাক্তন ব্রিটিশ মডেল এলিজাবেথ হোড।
সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে ব্রিটেনের বিখ্যাত টিভি শো ‘দি মর্নিং’-এর একটি পর্বে। শেষমেশ তাই নিজের প্রিয় পোষ্য, প্রিয় সঙ্গীকেই বিয়ে করলেন তিনি।
বিয়ের পোশাকে দু’জনকে এক সঙ্গে দেথে স্তম্ভিত শো-এর হাজার হাজার দর্শক! কেউ প্রশংসা করেছেন এলিজাবেথের ভাবনা চিন্তার, কেউ আবার সমালোচনায় সরব হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

https://twitter.com/thismorning/status/1156164895035076609

জানেন কি দিনের কোন সময় পেট্রোল কিনলে হবেন লাভবান ?

জানেন কি দিনের কোন সময় পেট্রোল কিনলে হবেন লাভবান ?

পেট্রোল এখন বিকোচ্ছে সোনার দরে।তাইতো সব সময় পেট্রোল কিনলে চলবে না। বিশেষজ্ঞদের মতে, পেট্রোলিয়ামজাত পদার্থ সকালের দিকে কেনাটাই সবচেয়ে লাভের হয়। এর কারণ হল পেট্রোল বা ডিজেলের মত পেট্রোলিয়াম প্রোডাক্ট গরম থাকা অবস্থা বেড়ে যায়।দুপুরের দিকে তাপমাত্রা সাধারণত বেশি থাকে। ফলে টাকা খরচ করে যখন আমরা নির্দিষ্ট পরিমাণ পেট্রোল/ডিজেল কিনি তখন সেটা expansion বা বিস্তৃত বা স্ফিত অবস্থায় থাকে। সকালের দিকে ঠান্ডা তাপমাত্রায় পেট্রোল, গ্যাস বা ওই জাতীয় পদার্থ অপেক্ষাকৃত অনেক ঘন থাকে।ফলে একই পরিমাণ পেট্রোল বা ডিজেল দিনের অন্য সময়ের চেয়ে সকালের দিকে কিনলে খুব সামান্য হলেও বেশি পাওয়া যায়।

২ টি জুস পানের ফলে নিমেষে দূর হয়ে যাবে মাইগ্রেনের মারাত্মক মাথাব্যথা

২ টি জুস পানের ফলে নিমেষে দূর হয়ে যাবে মাইগ্রেনের মারাত্মক মাথাব্যথা

সাধারণ ২ টি জুস পানের ফলে নিমেষে দূর হয়ে যাবে মাইগ্রেনের মারাত্মক মাথাব্যথা। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই দুটি পানীয় সম্পর্কে।

১. ব্রকোলী, গাজর ও আপেলের পানীয়

উপকরণঃ
– ছোট আকারের ব্রকলির ৮ ভাগের ১ ভাগ
– ২ টি মাঝারি আকারের গাজর
– ১ টি আপেল
পদ্ধতিঃ
– ব্রকলি, আপেল ও গাজর ছোটো ছোটো খণ্ড করে ব্লেন্ডারে সামান্য জল দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন ভালো করে।
– মিহি ব্লেন্ড করে ছেঁকে নিতে পারেন। প্রয়োজন না পড়লে ছেঁকে নেয়ার দরকার নেই।
– এতে মেশান ১ চিমচি লবণ ও ১ চিমটি বিট লবণ। এবার এই পানীয় পান করে নিন। অনেক দ্রুত ভালো ফল পাবেন।

২. লেবুর রস, মধু ও আপেল সিডার ভিনিগারের পানীয়

উপকরণঃ

– ২ চা চামচ আপেল সিডার ভিনিগার
– ১ গ্লাস জল
– ১ চা চামচ মধু
– ১ চা চামচ লেবুর রস
পদ্ধতিঃ
– ১ গ্লাস জলে আপেল সিডার ভিনিগার ভালো করে মিশিয়ে নিন।
– ভিনিগার মিশে গেলে এতে, মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে নিন ভালো করে।
– এই পানীয় মাইগ্রেনের ব্যথা শুরু হলে দিনে ২-৩ বার পান করুন। মাইগ্রেনের ব্যথা দূর হবে খুব দ্রুত।

কেবল স্বাদেই নয়, ইলিশের পুষ্টিগুণে মধুর হয় যৌন মিলনও

কেবল স্বাদেই নয়, ইলিশের পুষ্টিগুণে মধুর হয় যৌন মিলনও

জলপথেই যে রয়েছে মাছে-ভাতে বাঙালির রসনা তৃপ্তির হদিশ। গরম ভাতে ভাজা, সর্ষে বাটা দিয়ে ভাপা, কালোজিরে, বেগুন দিয়ে পাতলা ঝোল বা টক৷ যাই হোক না কেন ইলিশ বাঙালিয়ানার অবিচ্ছিন্ন অংশ। ইলিশের পুষ্টিগুণে মধুর হয় যৌন মিলনও।শুধু মিলন সুখই নয়, পরিবার পরিকল্পনাকেও পরিপূর্ণ করতে সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। একই সঙ্গে গবেষকদের দাবি, পুষ্টিগুণে সামুদ্রিক মাছের তালিকায় প্রথমেই রয়েছে ইলিশ। মিচিগান ও টেক্সাসে প্রায় পাঁচশো দম্পতির উপর গবেষণা চালিয়েছেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটস অফ হেলথ-এর গবেষকরা। দেখা গিয়েছে যাঁরা সপ্তাহে দু’দিনের বেশি ইলিশ মাছ খান তাঁদের কামাসক্তি অনেক বেশি। পাশাপাশি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তাঁদের বন্ধ্যাত্বজনিত সমস্যার সমাধান হয়ে গিয়েছে। এবং মহিলারা সন্তান ধারণে সক্ষম হয়েছেন।

এবার ঘরোয়া উপায়েই তৈরি করুন মাউথওয়াশ

এবার ঘরোয়া উপায়েই তৈরি করুন মাউথওয়াশ

বেকিং সোডা: আধা চা চামচ বেকিং সোডা আধা গ্লাস ‍কুসুম গরম জলে মিশিয়ে নিলেই একধরনের মাউথওয়াশ তৈরি হয়ে গেলো। দাঁত ব্রাশ করার পর কিংবা দিনের যেকোনো সময় শুধু এই মিশ্রণ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিতে পারেন। মুখের দুর্গন্ধ ও ব্যাকটেরিয়া দূর করতে বেকিং সোডা অত্যন্ত কার্যকরী।

নারকেল তেল: এই পদ্ধতির নাম ‘ওয়েল পুলিং’, যার জন্য চাই এক চা চামচ নারিকেল তেল। তেলটুকু মুখে নিয়ে কিছুক্ষণ কুলি করতে হবে। পরে তেল ফেলে দিয়ে জল দিয়ে ভালোভাবে কুলি করতে হবে। মুখ পরিষ্কারের পাশাপাশি শরীরের বিষাক্ত উপাদান অপসারণেও সহায়ক ভূমিকা রাখে এই পদ্ধতি। দাঁতে ‘প্লাক’ জমাও রোধ করে।

নুন: নুন-জল দিয়ে কুলকুচি করা সম্পর্কে অনেকেই জানেন। এখানেও চাই আধা গ্লাস কুসুম গরম জল আর আধা চা চামচ নুন। একসঙ্গে মিশিয়ে নিলেই কাজ শেষ। বাজারের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মাউথওয়াশের মতোই কার্যকরী এটি।

অ্যালোভেরা: আধা কাপ অ্যালোভেরা আর আধা কাপ জল একসঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। প্রতিবার দাঁত ব্রাশ করার হয় এই মিশ্রণ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করতে হবে। দাঁতে ‘প্লাক’ জমা রোধ করে এবং মাড়ির রক্তক্ষরণ বন্ধ করে এই মিশ্রণ।

দারুচিনি আর লবঙ্গের তেল: এক কাপ জলে ১০ ফোঁটা দারুচিনির তেল আর ১০ ফোঁটা লবঙ্গের তেল যোগ করতে হবে। উপকরণগুলো ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। সাধারণ মাউথওয়াশের মতো করেই ব্যবহার করতে পারবেন। দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করা যায় এই মিশ্রণ, তাই একসঙ্গে বেশি করে বানিয়ে রেখে দিতে পারেন।