গৃহস্থ বাড়ির ঘরের দরজা ভেঙে দুঃসাহসিক চুরি

গৃহস্থ বাড়ির ঘরের দরজা ভেঙে দুঃসাহসিক চুরি। একের পর এক চুরির ঘটনার পর কয়েকদিন স্বাভাবিক থাকতেই আবারও চুরির প্রকপ। গতকাল রাতে শান্তিপুর ব্লকের গয়েশপুর পঞ্চায়েতের অন্তর্গত হিজুলি মুসলিম পাড়ায় এক ভয়াবহ চুরির ঘটনায় আতঙ্কিত গোটা এলাকা।

 

ওই এলাকার বাবলু বিশ্বাস পিতা করিম বিশ্বাস, পেশায় ভুষি মালের ব্যবসায়ী। প্রতিদিনই ব্যবসায়িক কারণে তার বাড়িতে নগদ টাকা মজুদ থাকে। পাশের পূর্বপাড়ায় শ্বশুরবাড়িতে গতকাল রাত্রে স্ত্রী এবং দুই পুত্রসহ যায় বেড়াতে। সন্ধ্যায় চাবি দিয়ে দরজার তালা খুলে, প্রথমেই চোখে পড়ে আলমারি খোলা রয়েছে। মেঝেতে পড়ে রয়েছে একটি আগুন জালানো লাইটার। লকার ভাঙ্গা ওই আলমারির মধ্যে রাখা ছিল নগদ তিন লক্ষ কুড়ি হাজার টাকা, এবং ১২ ভরি সোনা।

 

পার্শ্ববর্তী দুদিকে দুই ভাইয়ের বাড়ি হওয়ার কারণে, এবং বিগত দিন এভাবেই তালা দিয়ে মাঝেমধ্যে যাওয়ার অভ্যাস ছিল তাদের, তবে কখনোই কোনদিন এ দুর্ঘটনা ঘটেনি। তাই এবার এভাবে সর্বস্বান্ত হয়ে যাবেন তা কখনো ভাবেননি তিনি। তিনি বলেন, সম্ভবত গতকাল রাতে জানলার গ্রিল এবং কাঠের পাল্লা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেছিল কেউ। আশেপাশে দুই ভাইয়ের বাড়িতে বা প্রতিবেশীদের এমন কি গ্রামেও কোথাও সিসি ক্যামেরা নেই । তাই নির্দিষ্ট করে বলাও , সম্ভব নয়।

 

তবে শান্তিপুর থানায়, জানানোর সাথে সাথেই তারা এসে খতিয়ে দেখে যান সমগ্র বাড়ি। মেঝেতে পড়ে থাকা ওই আগুন জ্বালানো গ্যাস লাইট টি নিয়ে গেছে পুলিশ। এখন ওই লাইট থেকে তদন্ত করে কিছু উদ্ধার হয় কিনা, সেটা জানা যাবে আগামীতে।

আরও পড়ুন – কেশপুরে গোষ্ঠী কোন্দল, পরিস্থিতি সামলাতে ময়দানে মানস ভুঁইয়া

পার্শ্ববর্তী বাসিন্দা ওই গ্রামের পঞ্চায়েত সদস্য আসর আলী শেখ জানান, সন্দেহ তালিকায় নির্দিষ্ট করে কারর কথা বলতে পারছে না ওই পরিবার, তাই রহস্য উদঘাটন করা যথেষ্ট কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তবে এর আগেও বিদ্যালয়ে এবং অপর একটি বাড়িতে এ ধরনের চুরি হওয়ার পর, সকলের সতর্ক হওয়া দরকার। আগামীতে গ্রাম সভা ডেকে পাহারাদারের ব্যবস্থার কথা আলোচনা করা হবে। বাড়ির ঘরের