ডায়মন্ডহারবারেই অভিষেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় অভিযোগ দায়ের

ডায়মন্ডহারবারেই অভিষেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় অভিযোগ দায়ের , নিজেরই লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন থানায় অভিযোগ দায়ের করল বিজেপি। একুশে জুলাই শহিদ সমাবেশে মঞ্চ থেকে দাঁড়িয়ে ডায়মন্ডহারবার লোকসভা কেন্দ্রের সংসদ তথা তৃণমূলের শীর্ষ নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ব্লক থেকে শুরু করে বুথ, সব স্তরে যত বিজেপি নেতা আছেন, আপনাদের এলাকায়, তার একটা তালিকা তৈরি করুন। আগামী ৫ অগাস্ট শনিবার শান্তিপূর্ণভাবে বিজেপি নেতাদের বাড়ি ঘেরাও করুন। সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত বাড়ি ঘেরাও করুন।’ তবে তিনি এও জানিয়ে দেন, বাড়িতে বয়স্ক কেউ থাকলে তাঁদের ছেড়ে দিতে হবে।

 

 

 

 

 

ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি নেতা বিধান পাড়ুই বলেন, ‘ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রে বিভিন্ন থানাতে বিজেপি নেতা নেতৃত্বরা গিয়েছিলেন অভিযোগ জানাতে। কিন্তু তাদের অভিযোগ নেয়া হয়নি। ভাইপোর ভয়ে অভিযোগ নিচ্ছে না কোনও থানাতে। এরপর আমরা ইমেইলের মাধ্যমে অভিযোগ জানাই বিভিন্ন থানাগুলিতে। সাংসদ পদে শপথ নেওয়ার সময় সাধারণ মানুষের প্রতি যে আস্থার কথা তিনি বলেছিলেন সেটি রক্ষা করতে পারছেন না। আমরা দাবি জানিয়েছি, আগামী ৫ অগাস্ট যে কর্মসূচি নেওয়ার কথা বলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সেই কর্মসূচি অনুযায়ী প্রতিটি থানার অন্তর্গত সকল বিরোধী দলের কর্মী সমর্থকদের পূর্ণ নিরাপত্তা দিতে হবে পুলিশ প্রশাসনকে। এর পাশাপাশি ডায়মন্ডহারবার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যে কথাবার্তা বলেছেন তার জন্য মাধ্যমে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে।’

 

 

 

 

 

অভিষেক একুশে জুলাইয়ের মঞ্চে বক্তৃতা রাখতে ওঠেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিষেকের ঘোষণা করা কর্মসূচি । মমতা বলেন, ‘বিজেপি নেতাদের বাড়ি ঘেরাও করবে। বাড়ি থেকে ১০০ মিটার দূরে করবে। ইলেকশনে যেমন ১০০ মিটার দূরে ক্যাম্প হয়। তাতে কেউ বলতে পারবে না অবরুদ্ধ করা হয়েছে।’ মূলত একশো দিনের কাজের টাকা না দেওয়ার প্রতিবাদে এই কর্মসূচির ডাক। কিন্তু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বলা প্রথম কথার ভিত্তিতেই ময়দানে নেমে পড়েন বিজেপি কর্মীরা। শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্কও। ইতিমধ্যেই সেই কথার ভিত্তিতে অভিষেকের বিরুদ্ধে এফআইআর-ও দায়ের হয়েছে। অভিযোগকারীদের বক্তব্য, অভিষেক যা বলেছেন, তা আইন বিরুদ্ধে। আর তার ভুল বার্তা নীচু তলার কর্মীদের মধ্যে পৌঁছবে। এতে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হবে।

 

 

 

 

 

আরও পড়ুন –  আরজি করের ‘দুর্নীতি’ নিয়ে রাজ্যপালকে চিঠি চিকিৎসদের

 

 

 

 

এর প্রতিবাদে বুধবার ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন থানাতে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা গিয়ে ডায়মন্ডহারবার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। বিজেপি কর্মী সমর্থকদের দাবি, বিভিন্ন থানায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিতে অস্বীকার করেন পুলিশ আধিকারিকরা। এরপর বাধ্য হয়ে বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা ইমেইলের মাধ্যমে নিজেদের অভিযোগ জানান বিভিন্ন থানাগুলিতে।