কেন্দ্রের একাধিক জনবিরোধী নীতির বিরোধিতায় এদিন দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করলেন বৈষ্ণবনগরের বিধায়ক

কেন্দ্রের একাধিক জনবিরোধী নীতির বিরোধিতায় এদিন দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করলেন বৈষ্ণবনগরের বিধায়ক

মালদা: কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের একাধিক জনবিরোধী নীতির বিরোধিতায় এদিন দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করলেন বৈষ্ণবনগরের বিধায়ক তথা মালদা জেলা। এদিনের এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন যুব তৃণমূল সভাপতি চন্দনা সরকার।

 

মূলত এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জানান, কেন্দ্র সরকার জোর করে এবং ক্ষমতার অপব্যবহার করে রাজ্যের পাওনা টাকা আটকে রেখে রাজ্যের সাধারণ মানুষকে বঞ্চনা করছে। ১০০ দিনের কাজের টাকা গত ২বছর ধরে আটকে রাখা হয়েছে। পাশাপাশি আবাস যোজনার ঘরের টাকাও আটকে দেওয়া হয়েছে। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী বকেয়া টাকা পাওয়ার জন্য আন্দোলন করছেন। কিন্তু তারপরেও রাজ্যের টাকা কেন্দ্রের বিজেপি সরকার দিতে চাইছে না।

আরও পড়ুনঃ আজ ভোরে হাওড়া ফরসোর রোড একটি কাপড়ের গোডাউনে আগুন ঘটনার স্থলে দমকলের ১২ টি ইঞ্জিন

অভিষেক ব্যানার্জি সহ অন্যান্য নেতৃত্ব এ নিয়ে দিল্লির গ্রামোন্নয়ন ভবনে গ্রামোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রীর সাথে দেখা করতে গেলে মন্ত্রী দেখা করেননি। পাশাপাশি দিল্লি পুলিশ তাদের হেনস্থা করে এবং শান্তিপূর্ণ অবস্থান বিক্ষোভে পুলিশ‌ লাঠিচার্জ করে।

 

এছাড়াও তিনি আরও জানান, আমাদের দলের সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা ইতিমধ্যেই জেলার প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে পথসভা করেছি। তাতে সাধারণ মানুষ যথেষ্ট সারা দিয়েছে। আগামীতে দ্রুত যদি আমাদের রাজ্যের বকেয়া পাওনা টাকা যদি না দেওয়া হয় তবে দলের নেত্রী এবং অভিষেক ব্যানার্জির নির্দেশ অনুযায়ী আমরা আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলনের দিকে এগোবো।

 

অভিষেক ব্যানার্জি সহ অন্যান্য নেতৃত্ব এ নিয়ে দিল্লির গ্রামোন্নয়ন ভবনে গ্রামোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রীর সাথে দেখা করতে গেলে মন্ত্রী দেখা করেননি। পাশাপাশি দিল্লি পুলিশ তাদের হেনস্থা করে এবং শান্তিপূর্ণ অবস্থান বিক্ষোভে পুলিশ‌ লাঠিচার্জ করে। এছাড়াও তিনি আরও জানান, আমাদের দলের সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা ইতিমধ্যেই জেলার প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে পথসভা করেছি। তাতে সাধারণ মানুষ যথেষ্ট সারা দিয়েছে। আগামীতে দ্রুত যদি আমাদের রাজ্যের বকেয়া পাওনা টাকা যদি না দেওয়া হয় তবে দলের নেত্রী এবং অভিষেক ব্যানার্জির নির্দেশ অনুযায়ী আমরা আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলনের দিকে এগোবো।

 

অভিষেক ব্যানার্জি সহ অন্যান্য নেতৃত্ব এ নিয়ে দিল্লির গ্রামোন্নয়ন ভবনে গ্রামোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রীর সাথে দেখা করতে গেলে মন্ত্রী দেখা করেননি। পাশাপাশি দিল্লি পুলিশ তাদের হেনস্থা করে এবং শান্তিপূর্ণ অবস্থান বিক্ষোভে পুলিশ‌ লাঠিচার্জ করে।

en.wikipedia.org