আমবাগানে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার

আমবাগানে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার। আমবাগান থেকে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হল। বুধবার সকাল সকাল ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে মুর্শিদাবাদের সুতি থানার মহেসাইল-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের পারুলিয়া গ্রামে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ওই ব্যক্তির নাম নাম নিতাই দাস (৩৮)। তার বাড়ি পারুলিয়া গ্রামে। পেশায় ড্রাইভার ওই ব্যক্তির মৃত্যুর আসল কারন এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি। পরিবারের দাবি, দিন পনেরো আগে ড্রাইভারি কাজ সেরে বাড়ি ফিরেছিলেন নিতাই দাস।

 

গাড়ি চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে সে। তারপর থেকেই মানসিক হীনমন্যতায় ভুগছিলেন তিনি। মঙ্গলবার বেলা চারটা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি। রাতে বাড়ি না ফেরায় কার্যত উদ্বেগে রাত কাটান পরিবারের সদস্যরা। মোবাইলও সুইচ অফ ছিলো। এদিকে বুধবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরত্বে একটি আমবাগানে হঠাৎ পেশায় ড্রাইভার ওই ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে সুতি থানার পুলিশ। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়। মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে সুতি থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন – মধ্যপ্রদেশে পুরসভা নির্বাচনে বিজেপির বড় জয়

উল্লেখ্য, আমবাগান থেকে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হল। বুধবার সকাল সকাল ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে মুর্শিদাবাদের সুতি থানার মহেসাইল-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের পারুলিয়া গ্রামে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ওই ব্যক্তির নাম নাম নিতাই দাস (৩৮)। তার বাড়ি পারুলিয়া গ্রামে। পেশায় ড্রাইভার ওই ব্যক্তির মৃত্যুর আসল কারন এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি। পরিবারের দাবি, দিন পনেরো আগে ড্রাইভারি কাজ সেরে বাড়ি ফিরেছিলেন নিতাই দাস। গাড়ি চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে সে।

 

তারপর থেকেই মানসিক হীনমন্যতায় ভুগছিলেন তিনি। মঙ্গলবার বেলা চারটা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি। রাতে বাড়ি না ফেরায় কার্যত উদ্বেগে রাত কাটান পরিবারের সদস্যরা। মোবাইলও সুইচ অফ ছিলো। এদিকে বুধবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরত্বে একটি আমবাগানে হঠাৎ পেশায় ড্রাইভার ওই ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে সুতি থানার পুলিশ। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়। মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে সুতি থানার পুলিশ।