খালের ধারে গাছে টায়ার বেঁধে খেলতে গিয়ে জলে ডুবে মৃত্যু দুই পড়ুয়ার

খালের ধারে গাছে টায়ার বেঁধে খেলতে গিয়ে জলে ডুবে মৃত্যু দুই পড়ুয়ার, পুকুরের ধারে খেলতে গিয়েছিল বন্ধুদের সঙ্গে। সেখানেই মর্মান্তিক পরিণতি দুই স্কুল পড়ুয়ার। খেলতে গিয়ে খালের জলে পড়ে যায় তারা। জলে পড়েই মৃত্যু হয় তাদের। তারকেশ্বরের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া। জলজ্যান্ত দু’টি ছেলের এভাবে চলে যাওয়া মানতে পারছেন না কেউই। নিহতদের নাম অমিত সাউ ও সূর্য খাটুয়া। অমিত নবম শ্রেণির ছাত্র। সে ১১ নম্বর ওয়ার্ডেই থাকে। তবে সূর্যর বাড়ি হাওড়ার সালকিয়ায়। তারকেশ্বরে তার মামার বাড়ি। সেখানেই বেড়াতে এসেছিল সে।

 

 

 

 

 

 

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছন তারকেশ্বরের চেয়ারম্যান উত্তম কুণ্ডু। তিনি বলেন, “৫-৬টা ছেলে ওখানে খেলছিল। গাছে টায়ার বেঁধে খেলছিল ওরা। এরইমধ্যে দু’টো ছেলে পড়ে যায়। স্থানীয়রাই ছুটে গিয়ে ওদের তুলে আনে। থানায় খবর দেওয়া হয়। সকলে মিলে হাসপাতালে নিয়ে গেলেও রক্ষা করা গেল না।” হাসপাতালে এসে কান্নায় ভেঙে পড়ে পরিবার।

 

 

 

 

 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার বিকালে তারকেশ্বর পুরসভার ১১ নম্বর ওয়ার্ডে একটি খালের ধারে গাছে টায়ার বেঁধে খেলছিল বেশ কয়েকজন। সেখানে অমিত, সূর্যরাও ছিল। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, আচমকাই জলে পড়ে যায় তারা। সঙ্গে সঙ্গে হইহই শুরু হয়। বর্ষার কারণে খালের জলও ভালই ছিল। এলাকার লোকজনের দাবি, সাঁতার জানত না তারা। তাতেই ডুবে যায়।

 

 

আরও পড়ুন –   চাঁদের এক্কেবারে কাছাকাছি গিয়েও শেষ রক্ষা হল না, চন্দ্রপৃষ্ঠে ভেঙে পড়ল লুনা-২৫

 

 

 

 

সেই দৃশ্য দেখে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে বাকি ছেলেরা। ছুটে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর দেওয়া হয় থানায়ও। তবে ততক্ষণে যা বিপদ ঘটার ঘটে গিয়েছে। খালের জল থেকে তুলে তাদের তারকেশ্বর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

 

( সব খবর, ঠিক খবর , প্রত্যেক মুহূর্তে ফলো করুন Facebook পেজ এবং Youtube )